• বুধবার ( রাত ১২:০৮ )
  • ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০২০ ইং

» মেসি-সুয়ারেসের নৈপুণ্যে সেভিয়াকে উড়িয়ে দুইয়ে বার্সেলোনা

প্রকাশিত: ০৭. অক্টোবর. ২০১৯ | সোমবার


মাঝেমধ্যেই ছন্দ হারানো বার্সেলোনা যেন ফিরল স্বরূপে। আসরে প্রথমবারের মতো ঘরের মাঠে অক্ষত রাখতে পারল জাল। জ্বলে উঠলেন ফরোয়ার্ড ও মিডফিল্ডাররা। কাম্প নউয়ে সেভিয়াকে উড়িয়ে লিগে দুই নম্বরে উঠে এসেছে এরনেস্তো ভালভেরদের শিষ্যরা।

লা লিগার ম্যাচে রোববার রাতে ৪-০ গোলে জিতেছে শিরোপাধারীরা। দুর্দান্ত গোলে লুইস সুয়ারেস দলকে এগিয়ে নেওয়ার পর ব্যবধান বাড়ান আর্তুরো ভিদাল। জালের দেখা পান উসমান দেম্বেলেও। জাদুকরী এক ফ্রি কিকে আসরে প্রথমবারের মতো ঠিকানা খুঁজে পান লিওনেল মেসি।

প্রথম বিদেশি গোলরক্ষক হিসেবে বার্সেলোনার হয়ে সব ধরনের প্রতিযোগিতায় দুইশ ম্যাচের মাইলফলক স্পর্শ করলেন মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। আর এই শতাব্দীতে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে লা লিগায় টানা ১৬ মৌসুমে গোল করলেন মেসি।

চোট আর কার্ড সমস্যায় খুব একটা ভারসাম্যপূর্ণ ছিল না বার্সেলোনার রক্ষণ। শুরুতে এই সুবিধা কাজে লাগিয়ে ২৬ মিনিটের মধ্যে হ্যাটট্রিক করে ফেলতে পারতেন লুক ডি ইয়ং।

একাদশ মিনিটে লুকাস ওকাম্পোসের কাটব্যাক থেকে বল পেয়ে যান এই ডাচ ফরোয়ার্ড। তার শট কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন বার্সেলোনা গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন। সপ্তদশ মিনিটে বিপজ্জনক জায়গায় বল পেয়ে বাইরে মেরে সুযোগ নষ্ট করেন ডি ইয়ং।

২৬তম মিনিটে আবার সুযোগ আসে এই ডাচ ফরোয়ার্ডের সামনে। ওকাম্পোসের ক্রসে তার হেড মাটিতে ড্রপ খেয়ে চলে যায় ক্রসবারের ওপর দিয়ে। বেঁচে যায় বার্সেলোনা।
পরের মিনিটে সুয়ারেসের দুর্দান্ত গোলে এগিয়ে যায় শিরোপাধারীরা। নেলসন সেমেদোর দারুণ ক্রসে বাঁ পায়ের বাইসাইকেল কিকে জাল খুঁজে নেন উরুগুয়ের স্ট্রাইকার। চলতি আসরে এটি তার চতুর্থ গোল। এই গোলের পর পাল্টে যায় খেলার চিত্র।

৩২তম মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন মৌসুমে প্রথমবারের মতো শুরুর একাদশে জায়গা পাওয়া ভিদাল। আর্থারের চমৎকার ক্রসে ছুটে গিয়ে দারুণ স্লাইডে ঠিকানা খুঁজে নেন অরক্ষিত এই মিডফিল্ডার।

দুই মিনিট পর ব্যবধান আরও বাড়ান দেম্বেলে। আর্থারের কাছ থেকে বল পেয়ে গতি আর পায়ের কারিকুরি দিয়ে ডিফেন্ডারদের বিভ্রান্ত করে বাঁ পায়ের কোনাকুনি শটে গোলটি করেন এই ফরাসি ফরোয়ার্ড।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে ব্যবধান কমাতে পারতো সেভিয়া। এখনও লিগে কোনো গোল না পাওয়া ডি ইয়ংয়ের কোনাকুনি শট ফিরে পোস্টে লেগে। সেভিয়ার আক্রমণের ঝাপটা সামলে ৫৯তম মিনিটে ব্যবধান আরও প্রায় বাড়িয়ে ফেলছিল বার্সেলোনা। মেসির কোনাকুনি শট কোনোমতে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান অতিথি গোলরক্ষক।


চোট সমস্যায় মৌসুমের শুরুতে খুব বেশি খেলা হয়নি মেসির। তারপরও চলতি আসরে তার গোল না পাওয়াটা একটু অস্বাভাবিকই ছিল। ৭৮তম মিনিটে দারুণ এক ফ্রি কিকে খরা কাটালেন আর্জেন্টাইন তারকা। প্রথমবারের মতো বল পাঠালেন জালে।
৮৭তম মিনিটে জোড়া ধাক্কা খায় বার্সেলোনা। হাভিয়ের এর্নানদেসকে ফাউল করে লাল কার্ড দেখেন অভিষিক্ত ডিফেন্ডার রোনালদ আরায়ো। দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন দেম্বেলে।

এই জয়ে ৮ ম্যাচে ১৬ পয়েন্ট নিয়ে দুই নম্বরে উঠে গেছে বার্সেলোনা। ১৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে রিয়াল মাদ্রিদ। দিনের অন্য ম্যাচে রিয়াল ভাইয়াদলিদের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করা আতলেতিকো মাদ্রিদ ১৫ পয়েন্ট নিয়ে আছে তিন নম্বরে।

ফেসবুক থেকে কমেন্ট করুন।
Share Button

এই সংবাদটি পড়া হয়েছে ১৫৫ বার

Share Button